সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার কেন গুরুত্বপূর্ণ এবং সুবিধা কি?

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার:

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার একজন ব্যক্তি বা পেশাদার যার দায়িত্ব হয় একটি প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল এবং পৃষ্ঠার পরিচালনা ও প্রচার-প্রসার করা। এই ব্যক্তির কাজের ধারায় থাকে সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে ব্র্যান্ড অথবা ব্যক্তির প্রতি সম্মুখিন থাকা, একাধিক প্ল্যাটফর্মে প্রচার-প্রসার করা, সামাজিক যোগাযোগ সংরক্ষণ করা, নতুন অনুসরণকারীদের আকর্ষণ করা, সোশ্যাল মিডিয়া ক্যাম্পেইনের পরিচালনা করা, এবং ডেটা বা অনুসন্ধানের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির জন্য উপযুক্ত স্ট্রাটেজি তৈরি করা।

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজারের কাজের কিছু গুরুত্বপূর্ণ কার্যের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত থাকতে পারে:

  • সোশ্যাল মিডিয়া প্রোফাইল পরিচালনা: সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার দায়িত্ব নেয় প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির প্রোফাইল সঠিকভাবে পরিচালনা করে, সম্প্রচার করে, এবং নতুন সুযোগ তৈরি করতে।
  • সামাজিক যোগাযোগ ও সম্প্রচার: সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে আকর্ষণ করতে সাহায্য করে এবং ব্র্যান্ড বা ব্যক্তির ম্যানেজমেন্ট করে।
  • সোশ্যাল মিডিয়া ক্যাম্পেইন পরিচালনা: বিশেষ করে প্রচুর প্রচারের জন্য সোশ্যাল মিডিয়া ক্যাম্পেইন তৈরি এবং পরিচালনা করা সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজারের একটি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব।
  • ডেটা বা অনুসন্ধান ভিত্তিক স্ট্রাটেজি তৈরি: সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার তথ্য এবং ডেটা ব্যবহার করে প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির জন্য উপযুক্ত স্ট্রাটেজি তৈরি করতে সাহায্য করতে পারে।

প্ল্যাটফর্ম বাছাই করাঃ

 

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার একজন বা একটি প্রতিষ্ঠানের জন্য প্ল্যাটফর্ম বাছাই করা গুরুত্বপূর্ণ এবং সঠিক একটি প্রক্রিয়া। এটি ব্যক্তির বা প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্যগুলির সাথে মিলে যাওয়া এবং পারফরমেন্স মনিটর করার জন্য উপযুক্ত হতে হবে। তাই, প্রতিষ্ঠানের লক্ষ্য, দর্শকের প্রমাণ, টার্গেট অডিয়েন্স, বাজেট, এবং আরও কিছু কৃতিত্বমূলক উপায়ে প্ল্যাটফর্ম বাছাই করা যায়।

নিচে কিছু জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম এবং তাদের বৈশিষ্ট্যগুলি দেওয়া হলো:

  • ফেসবুক: বিশ্বের সবচেয়ে বড় সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম। এটি প্রতিষ্ঠানগুলির জন্য ব্র্যান্ড প্রচারে একটি প্রধান জায়গা, সর্বাধিক ব্যবহৃত এবং বিজ্ঞান টার্গেট করতে পারে।
  • ইনস্টাগ্রাম: ছবি এবং ভিডিওর শেয়ারে বিশেষভাবে পোপুলার, ইনস্টাগ্রাম বৈশিষ্ট্যগুলির জন্য প্রকাশকের সাথে একটি মহৎ সামাজিক যোগাযোগ প্ল্যাটফর্ম।
  • টুইটার: সংক্ষেপে মন্তব্য এবং সংক্ষেপে দিয়ে সংদম্ভ স্থাপন করতে এটি একটি উত্তম প্ল্যাটফর্ম।
  • লিঙ্কডইন: পেশাদার নেটওয়ার্কিং এবং ব্যবসায়িক যোগাযোগের জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ প্ল্যাটফর্ম, লিঙ্কডইন একটি পেশাদার দৃষ্টিকোণ সাধারিত করতে সাহায্য করে।
  • ইউটিউব: ভিডিও বিপণির জন্য ইউটিউব অত্যন্ত প্রভাবশালী এবং চলচ্চিত্র পোস্ট করতে একটি ভাল প্ল্যাটফর্ম।
  • পিনটারেস্ট: উদাহরণস্বরূপ, পিনটারেস্ট একটি ছবি ভিত্তিক প্ল্যাটফর্ম, যেখানে ব্যবহারকারীরা ইচ্ছুক বিষয়ে ছবি শেয়ার করতে পারেন।

ব্যবসায়িক পরিকল্পনা গ্রহণঃ 

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার আপনার বিজনেস এর বিভিন্ন ধরনের পরিকল্পনা করে থাকে। কিভাবে একটি বিজনেস কে ভালো পজিশনে দাড় করানো যায়, কিভাবে আই ক্যাচি করে বিজ্ঞাপন দিলে কাস্টমাররা আকৃষ্ট হয়, কিভাবে ছবি এডিটিং করলে দেখতে সুন্দর লাগে ইত্যাদি পরিকল্পনা একজন সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার করে থাকে।

বাজেট তৈরিঃ 

একটি প্রতিষ্ঠান এর প্রচার প্রচারণা করতে গেলে যত প্রকার খরচ হতে পারে তার সম্ভাব্য বাজেট তৈরি করে থাকে এবং বাজেট অপ্টিমাইজ করার ক্ষমতা রাখে একজন দক্ষ সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার।

এস.ই.ও কন্টেন্ট তৈরি ও প্রচারঃ 

একজন  দক্ষ ম্যানেজার এর লেখালেখির দক্ষতা ও থাকতে হবে। কারণ বিভিন্ন পোস্ট দেওয়ার সময় তাকে লিখতে হবে। খুব যে আহামরি দক্ষতা থাকতে হবে এমন টা না কিন্তু যাতে সাবলীল ভাষায় গ্রাহকদের কাছে সব তথ্য উপস্থাপন করতে পারে এরকম দক্ষতা থাকতে হবে। গ্রাহকদের সাথে যোগাযোগ করার মত দক্ষতা ও তার থাকতে হবে।  এক্ষেত্রে একজন এক্সট্রোভার্ট মানুষ হলে বেশি ভালো হয় যে কমফোর্টলি সব গ্রাহক কে ম্যানেজ করতে পারবে। তার লেখা গুলো হতে হবে বিষয়ভিত্তিক। বিজনেস কন্টেন্ট লেখার দক্ষতা থাকতে হবে অর্থাৎ অল্প কথায় একজন কাস্টমার কে বোঝাতে হবে আপনি কি বোঝাতে চাইছেন। লেখা সঠিক হতে হবে এবং ইনফোরমেটিভ হতে হবে।

একজন সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার এর অবশ্যই এস.ই.ও সম্পর্কে ও বিস্তারিত ধারণা থাকতে হবে। সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম টা বিশাল তাই এই বিশাল প্ল্যাটফর্মে প্রতিষ্ঠান কে সবার সামনে তুলে ধরতে এস.ই.ও কনটেন্ট এর বিকল্প নেই। একজন কাস্টমার গুগল এ  কিওয়ার্ড সার্চ করার মাধ্যমে যাতে আপনার প্রতিষ্ঠান এর সমস্ত তথ্য জানতে পারে, এই জন্য কন্টেন্ট এস.ই.ও করাটা গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া এস.ই.ও কন্টেন্ট রাইটিং এর মাধ্যমে আপনার বিজনেস কে সবার সামনে উপস্থাপন করে। তাই এমন একজন ম্যানেজার কে হায়ার করুন যার এস.ই.ও এবং কন্টেন্ট রাইটিং সম্পর্কে ধারণা আছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বিজ্ঞাপন দেওয়ার অভিজ্ঞতাঃ 

প্রতিষ্ঠান এর জন্য ইফেক্টিভ বিজ্ঞাপন দেওয়া টা অনেক জরুরি এবং এটি সবার কাছে পৌঁছাতে পারাটাও অনেক চ্যালেঞ্জিং ব্যাপার। শুধু বিজ্ঞাপন তৈরি করলাম আর সেটা প্রতিষ্ঠান এর জন্য উপযুক্ত হবে এমনটা ও না। বুদ্ধি খাটিয়ে উপযুক্ত বিজ্ঞাপন দিয়ে থাকে একজন দক্ষ সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার। আবার বিজ্ঞাপন এর প্ল্যাটফর্ম বাছাই করাও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। বিজ্ঞাপন এর ক্ষেত্রে, ভিডিও তৈরি করে ফেইসবুক এ দেওয়া যায়। আবার বর্তমান এ, পেইড বিজ্ঞাপন গুলো ও অনেক কাজ দিচ্ছে।

সোশ্যাল মিডিয়ায় অথবা গুগলে পেইড বিজ্ঞাপন দেওয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার বিজনেস এর প্রোডাক্ট গুলো সবার সামনে তুলে ধরতে পারেন।  এক জরীপে দেখা গেছে, প্রায় ৭০ শতাংশ প্রতিষ্ঠান সফলতা পেয়েছে পেইড বিজ্ঞাপন এর মাধ্যমে। তাই কিভাবে বিজ্ঞাপন দিলে সবার কাছে পৌঁছানো সম্ভব, টার্গেটেড কাস্টমারই বা কারা সে সব বিষয়ে একজন সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার এর বেসিক জ্ঞান থাকতে হবে।

উপরের ব্লগ টি পড়ে আপনি নিশ্চয়ই বুঝে গেছেন আপনার বিজনেস এর ক্ষেত্রে একজন সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার কেন এতটা গুরুত্বপূর্ণ।

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার এর কাজ সম্পর্কে জানতে ভিডিওটি দেখতে পারেন

Related Posts

আমাজন এফিলিয়েট মার্কেটিং করে কিভাবে আয় করবেন?

আমাজন এফিলিয়েট মার্কেটিং করে আপনি আয় করতে পারেন নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করে: অ্যাকাউন্ট খোলা: প্রথমে আপনার একটি আমাজন এফিলিয়েট অ্যাকাউন্ট খুলুন। এটি খুব সহজ প্রক্রিয়া, এবং অ্যাকাউন্ট…

ফেসবুক এর মাধ্যমে কিভাবে আপনার ব্যবসার প্রচার করবেন?

ফেসবুক এর মাধ্যমে আপনার ব্যবসা প্রচার করতে আপনি একাধিক উপায়ে সক্ষম হতে পারেন। এখানে কিছু প্রধান উপায় দেখানো হয়েছে: ফেসবুক পেজ তৈরি করুন: ফেসবুক পেজ তৈরি করতে…

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *